মহানায়ক উত্তম কুমারের আজ মৃত্যু দিবস

প্রসেনজিৎ বিশ্বাস , কলকাতা :-
উত্তম কুমার যার প্রকৃত নাম অরুণ কুমার চট্টোপাধ্যায়। বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তাকে মহানায়ক উপাধী দেওয়া হয়েছে।তিনি কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন ১৯২৬ সালের ৩ সেপ্টেম্বর।১৯৮০ সালের আজকের দিনে তিনি মহাপ্রয়ান করেন।
তিনি ছিলেন একজন বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা, চিত্র প্রযোজক এবং পরিচালক। চলচ্চিত্র অভিনয় ছাড়াও তিনি মঞ্চে সাবলীলভাবে অভিনয় করেছেন।কলকাতার পোর্টে চাকরি নিয়ে কর্মজীবন শুরু হলেও গ্রাজুয়েশন শেষ করতে পারেননি।সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে চলচ্চিত্র জগতে প্রতিষ্ঠিত হতে তাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হয়েছিল।
তার পিতার নাম সাতকরি চট্টোপাধ্যায় এবং মাতা চপলা দেবী।তার ভাই তরুণকুমার একজন জনপ্রিয় অভিনেতা ছিলেন। তারা একসঙ্গে বেশ কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন ধন্যি মেয়ে,সপ্তপদী, সোনার হরিণ, শেষ অংক প্রভৃতি।
তার প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ছিল দৃষ্টিদান। তারপরে সাড়ে চুয়াত্তর ছবি মুক্তি পাওয়ায় তিনি বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন।উত্তম-সুচিত্রা একসঙ্গে বেশ কিছু ছবিতে কাজ করেন। তার মধ্যে হারানো সুর, পথে হল দেরি, বিপাশা, জীবন তৃষ্ণা, সাগরিকা ইত্যাদি ছবি সিনেমা জগতে বেশ সাড়া দিয়েছিল।
সত্যজিৎ রায়ের দুটি ছবিতে তিনি অভিনয় করেন প্রথমটি হচ্ছে নায়ক এবং দ্বিতীয়টি চিড়িয়াখানা।হারানো সুর’ ছবিতে অভিনয় করে তার খ্যাতি সারা দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। এন্টনি ফিরিঙ্গি ছবিতে অভিনয় করে তিনি তার আদর্শ প্রতিভার পরিচয় দেন।ওগো বধূ সুন্দরী ছবিতে তিনি শেষ বারের জন্য অভিনয় করেন।
বাংলা সিনেমা ছাড়াও তিনি বেশ কিছু হিন্দি সিনেমাতে অভিনয় করেছেন। তিনি যে একজন বড় অভিনেতা ছিলেন সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তার নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে ।তাকে স্মরণ করার জন্য এবং তাকে সন্মান জানানোর জন্য, টালিগঞ্জ মেট্রো স্টেশনটি তার নামকরণে মহানায়ক উত্তম কুমার নাম দেওয়া হয়েছে।