কাজ না পাওয়ায় তৃণমূল নেতাকে মারধরের অভিযোগ

হাবিব খাঁন , হরিশ্চন্দ্রপুর , ২৪ জুন:

সড়ক নির্মাণের কাজ না পাওয়ায় মালদা জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্যার স্বামী তথা তৃণমূল নেতা আমিনুল হক ও তার দুই ছেলেকে মারধরের অভিযোগ উঠলো হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির আত্মীয় ও তার অনুগামীদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে তৃণমূল নেতা আমিনুল হকের দুই ছেলে সহ তার অনুগামীদের বিরুদ্ধে গাড়ি ভাংচুরের পাল্টা অভিযোগ তুললেন হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জুবেদা বিবি। বুধবার বিকেলে প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত সাদলিচক অঞ্চলের কুমেদপুর আইডিয়াল ক্লাবে ও দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে মালিওর ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অর্জুনা এলাকায়। ফলে এদিনের ওই ঘটনার জেরে ওই এলাকায়  বিশাল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

জানা গেছে , এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত মালিওর ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের শিসাতলা বাঁধ রোড থেকে কুমেদপুর বাইপাস পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৭ কিমি সড়ক। ফলে প্রতি মুহূর্তে চরম নাজেহালের শিকার হচ্ছেন এলাকাবাসী।

এবিষয়ে মালদা জেলা পরিষদের সদস্যা মমতাজ বেগমের স্বামী তথা তৃণমূল নেতা আমিনুল হক বলেন ,ওই সড়কটি বেহাল হয়ে পড়ে থাকায় গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় এলাকাবাসী ওই বেহাল সড়কটি সংস্কার বা পুনর্নিমানের দাবি তোলেন এবং নির্বাচনে জয়লাভ করলে এলাকাবাসীর ওই দাবিটি পূরণ করার আশ্বাসদেন তিনি। নির্বাচনে জয়লাভের পর জেলা পরিষদ থেকে শুরু করে জেলাশাসক সহ অন্যান্য দপ্তরে দৌড়া দৌড়ি করে জেলা পরিষদ ও জেলাশাসকের পূর্ন সহযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের শরণাপন্ন হলে সড়কটি নির্মাণের জন্য প্রায় ৮ কোটি ৮৪ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ করে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর এবং সড়কটি নির্মাণের কাজ পায় মুর্শিদাবাদ জেলার অন্তর্গত বেলডাঙ্গার একটি নির্মাণ সংস্থা। যার কাজ আগামী কয়েক দিনের মধ্য শুরু হবে। তবে হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জুবেদা বিবির স্বামী আশরাফুল হকের দাবি ওই সড়কটির নির্মাণের কাজ তাকেই দিতে হবে বলে এমনটাই অভিযোগ আমিনুল বাবুর।

অন্যদিকে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে ওই বেহাল সড়কটির নির্মাণ কাজ জন্য শুরু করবে নির্মাণ সংস্থা।ফলে এদিন বিকেলে নির্মাণ সংস্থার কয়েকজন কর্মীর সাথে কুমেদপুরের আইডিয়াল ক্লাব সংলগ্নে একটি জায়গা দেখতে যান আমিনুল বাবু। ওই সময় সভাপতি জুবেদা বিবির স্বামী আশরাফুল হকের নেতৃত্বে তার ভাই ও তার অনুগামীরা আমিনুল বাবু ও তার দুই ছেলেকে মারধোর করে বলে অভিযোগ তৃণমূল নেতা আমিনুল হকের।

অন্যদিকে এদিন বিকেলে দপ্তর থেকে বাড়ি ফেরার পথে আমিনুল বাবুর দুই ছেলে ও তার অনুগামীরা তার গাড়িতে হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাংচুর করে বলে পাল্টা অভিযোগ তুলেন হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জুবেদা বিবি। যদিও কি কারনে তার গাড়িতে হামলা চালায় তারা তা কিছুই জানেননা ।