করোনার প্রকোপে চরম সংকটে মেলা ব্যবসায়ী


প্রসেনজিৎ বিশ্বাস, কলকাতা :-
সময়ের ধূলো পড়েছে তাদের গায়ে। আধুনিকতার আঁচে পুড়ছে তাদের ঐতিহ্য।আগের মতন মানুষের আনাগোনা দেখা যায় না মেলাতে। মানুষের আগ্রহ দিন দিন কমছে মেলার উপর। তার উপর আবার করোনার থাবা, যা চরম সংকটে ফেলে দিয়েছে মেলার ব্যাবসায়ীদের।
মেলা হল একটি সামাজিক,ধর্মীয়,বাণিজ্যিক বা অন্যান্য কারণে এক স্থানে অনেক মানুষ একত্রিত হন। মেলা শব্দটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মনে আনন্দের অনুভূতি হয়।মেলার আক্ষরিক অর্থ মিলন। এখানে একে অন্যের সঙ্গে ভাব বিনিময় হয়।
গ্রাম থেকে শহরে উভয় জায়গাতেই প্রতিবছর নানারকম মেলা হয়। গ্রামের মেলায় যাত্রা, পুতুল নাচ, রামায়ণ, পালার আসর, ষাড়ের লড়াই, মোরগ লড়াই ইত্যাদি দেখা যায়। শহরে বড় বড় নাগরদোলা, বাচ্চাদের বিভিন্ন রকম খেলনা, ভালো ভালো খাবার, ভালো ভালো বই দর্শকদের মুগ্ধ করে। কিছু কিছু ঐতিহ্যবাহী মেলা আছে যেমন নবদ্বীপের রাস মেলা, শান্তিনিকেতনের পৌষ মেলা, কলকাতার বইমেলা বিখ্যাত।সারাবছর মানুষ এই সমস্ত মেলায় আসেন আনন্দ উপভোগ করার জন্য। কিন্তু করোনার গ্রাসে বন্ধ হয়ে গেছে মেলা।সঙ্গে কেড়ে নিয়েছে মানুষের আনন্দ। কবে আবার মেলার প্রচলন শুরু হবে সেটা বলা দুস্কর। মেলায় বিভিন্ন খেলনা, খাবার, বই,গৃহস্তলির সামগ্রী ইত্যাদি বিক্রি করে যারা সংসার চালান, আজ তাদের অবস্থা শোচনীয়। যত দিন যাচ্ছে বাঁচার লড়াইয়ে তাদের হার স্বীকার করতে হচ্ছে করোনা মহামারীর কাছে।