জনধনের টাকা তুলতে হুড়োহুড়ি দিনহাটা ব্লকের ব্যাঙ্ক গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্রে

রবীন্দ্রনাথ বর্মন, দিনহাটা, ৮ এপ্রিল : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর মতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ক্ষেত্রে ভারত ক্রমে স্টেজ দুই থেকে তিনে প্রবেশ করছে। দেশজুড়ে জারি রয়েছে লকডাউন। এই কঠিন সময়ে গরীব মানুষের সুবিধার্থে তাঁদের ‘জনধন’ অ্যাকাউন্টে পাঁচশো  টাকা করে অনুদান দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই ঘোষণা ঘিরেই এদিন বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে ব্যাঙ্কগুলোয় চরম বিশৃঙ্খলার দৃশ্য দেখা গেল।

দিনহাটা ১নং ব্লকের অন্তর্ভুক্ত মাতালহাট গ্ৰামপঞ্চায়েতের গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্র চরম বিশৃঙ্খলা লক্ষ্য করা যায় বুধবার। এদিন শুধু মাতালহাট ব্যাঙ্ক গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্রে নয় ওই ব্লকের প্রতিটি গ্ৰামীণ এলাকায় থাকা ব্যাঙ্ক গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্রের একেই অবস্থা দেখা যায়।

নিজেদের প্রাপ্য টাকা তুলতে বিভিন্ন শাখায় জমা হন কয়েক হাজার মানুষ। সরকারের জারি করা বিধি নিষেধের তোয়াক্কা না করে, সামাজিক দূরত্ব না বজায় রেখে ঠেলাঠেলি শুরু করে দেন গ্ৰাহক । এর ফলে শুধু গ্রাহকরাই নন ব্যাঙ্ককর্মীদের সংক্রমণের আশঙ্কা করছেন। এক আতঙ্কিত গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্রের কর্মী নীশিথ সরকার বলেন, “ প্রতিদিন কয়েকশো মানুষ ব্যাঙ্কে আসছেন টাকা তুলতে। পর্যাপ্ত ভাইরাস প্রতিরোধক সুরক্ষা ছাড়াই আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। যে কোনও সময় সংক্রমণ হতে পারে।”

ওই অঞ্চলের বিভিন্ন গ্ৰাহক সেবা কেন্দ্র ভিড় সামলাতে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়নি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বেঁধে দেওয়া হয়নি গণ্ডি। যা অবস্থা তাতে সাধারণ মানুষের সঙ্গে ব্যাঙ্ককর্মীদেরও সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে। প্রশাসনকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধের কথাও বলেন ওই অঞ্চলের ব্যাঙ্কের কর্মীরা।