দু’হাজার টাকার জন্য ৪ বছরের ছেলেকে নৃশংস খুন

কল্যাণ অধিকারী, হাওড়া

পাওনা টাকা ফেরত পেতে তাগাদা করেছিল। দিয়েছিল হুমকি। তাতেও মালিক টাকা দেয়নি। সেই আক্রোশে মালিকের ৪বছরের ছেলেকে নৃশংস ভাবে খুন করবার অভিযোগ উঠেছে কর্মচারীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়া বাঁকড়া এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইফতাকারের চুরি তৈরির কারখানায় কাজ করত মহম্মদ সামিম। বহুদিন কাজ করবার সুবাদে মালিকের বিশ্বস্ত ছিল সামিম। মালিকের বাড়িতেও ছিল অবাধ যাতায়াত। মালিকের কাছে কাজ বাবদ পাওনা ছিল ৬হাজার টাকা। সেই টাকার জন্য মালিকের কাছে তাগাদা করতো। চার হাজার দিয়ে দিয়েছিল। বাকি ছিল দু’হাজার টাকা। ওই টাকার জন্য প্রায় দিন চাইতো সামিম। কিন্তু কারবারে মন্দার দরুন ক’দিন সময় চেয়েছিল মালিক। কিন্তু নাছোড় সামিম কোন সময় দিতে চায়নি।

আরও জানা গেছে, এরমধ্যে টাকার জন্য একাধিক বার হুমকি দিয়েছিল। বলেছিল টাকা না পেলে খারাপ হয়ে যাবে। কিন্তু তারজন্য ছেলেকে খুন করে দেবে বুঝে উঠতে পারছে না মালিক ইফতাকার। সূত্রের খবর এ দিন মালিককে তিন ঘন্টার মহলত দিয়েছিল। তারমধ্যে টাকা না পেলে হিসাব বুঝে নেবে। মালিক না থাকায় মালিকের ৪বছরের ছেলেকে গলার নলি কেটে খুন করে পালায়।

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ডোমজুড় থানার পুলিশ। রাত অবধি সামিমের কোন খোঁজ পায়নি পুলিশ। অবশেষে মোবাইল লোকেশন ট্রাক করে বর্ধমান স্টেশন থেকে ভোররাতে গ্রেফতার করেছে হাওড়া সিটি পুলিশ। আজ তাকে হাওড়া আদালতে তোলা হবে বলে সূত্রের খবর।