‘অভিনন্দন কোথাও যেন পবন তবুও দেখা মিলল না সৌহার্দের’

-কল্যাণ অধিকারী –

অভিনন্দন বর্তমান ও পবন কুমার চতুর্বেদী (বজরঙ্গি ভাইজান) দুটি নাম এখন সর্বসমক্ষে। কথা না বলতে পারা মুন্নি কে নিয়ে পাকিস্তান যাত্রা করে পবন। অবশ্যই বিনা ভিসা-পাসপোর্টে মাটির তলার সুড়ঙ্গ দিয়ে।

অভিনন্দন বর্তমান পাকিস্তান যুদ্ধবিমান কে ধাওয়া করে মিগ বিমান নিয়ে। ভেঙ্গে পড়বার আগে প্যারাসুটে করে পৌঁছে যায় পাকিস্তানে। বাকি দুটি চিত্র এক। পাকিস্তান দুজনের উপর অকথ্য অত্যাচার চালায়।

বহু বিপদ ও ঝামেলার মধ্যেও পাকিস্তানের সাধারণ মানুষের সহযোগীতা পায় পবন। কিন্তু অভিনন্দন বর্তমান সেই সাহায্য পায় নি। ভারতের কূটনৈতিক চাল ও বহির্বিশ্বের চাপে শেষমেশ ভারতে ফিরছেন অভিনন্দন বর্তমান।

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই লাহোর হয়ে ওয়াঘা সীমান্তে পৌঁছাবে। তারপর ভারতে মাটিতে পা রাখবেন বীরবিক্রম অভিনন্দন বর্তমান। সিনেমার পবনকে সীমান্তে বিদায় জানাতে আসেন হাজার হাজার পাকিস্তানের মানুষ। কিন্তু অভিনন্দনবর্তমান-এর সময় পাকিস্তানের মানুষ থাকলো মুখ ফিরিয়ে।

আর একজন যিনি পবনের কীর্তির ভিডিও ক্লিপিং করে সারা পাকিস্তানে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন। তারপর সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছিল সবাই। আজ সেই সাংবাদিক চাঁদ নওয়াবের কথাও বড্ড মনে পড়ছে।

ফিরে এসো অভিনন্দন। সৌহার্দের ফুল হাতে তোমার অপেক্ষায় গোটা দেশ।