সেঞ্চুরি হাঁকাতে পারে তেল,এখনই জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করুক কেন্দ্র: মত বিশেষজ্ঞদের

 

ইন্দ্রনীল সিনহা: আকাশছোঁয়া পেট্রোল, ডিজেল। মধ্যবিত্তের মাথায় হাত। মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ ও বনধের পরের দিনও বাড়লো তেলের দাম। লিটার প্রতি ১৪ পয়সা পেট্রোল ও ডিজেল দাম বাড়ল। আজ শহরে পেট্রোল ৮৩.৭৫, ডিজেল ৭৫.৮২ । এ যেন সেঞ্চুরি হাকাবে।
তবে এর মধ্যে আশার বাণী শুনিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করলে তেলের দাম কিছুটা হলেও কমতে পারে।
সম্পদ বিশেষজ্ঞ কিরিট পরিখ এক বিবৃতিতে জানান, তেলের দাম বাড়ার প্রধান কারণ হলো কেন্দ্রীয় সরকার-এর  ট্যাক্স। তিনি বলেন,”উচ্চ শুল্কের ফলে গত চার বছরে সরকারের আয় হয়েছে দ্বিগুন।
যেখানে২০১৪-১৫ সালে সরকারের আয় ছিল ৯৯১৮৪ কোটি, তা আজ ২০১৭-১৮ তে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২৯০১৯ কোটি।
কেন্দ্র যদি তেলের উপর অতিরিক্ত ট্যাক্স কমায় তাহলে তেলের দাম অনেকটাই কমে আসবে”।
তেলের উপর সর্বোচ্চ শুল্ক ২৮% ,যেখানে কেন্দ্রীয় সরকার ৫০% কর চাপিয়েছে তেলের উপর। সরকারকে এর ব্যাপারে যথাযুক্ত ব্যাবস্থা গ্রহন করা উচিত,মত বিশেষজ্ঞদের।
ভারত বনধের দিন স্বয়ং কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী “ধর্মেন্দ্র প্রধান” সাফ জানিয়ে দেন যে,তেলের দাম বাড়লেও কেন্দ্রর কিছু করার নেই। তিনি আরোও বলেন, তেল উৎপাদনকারী রাষ্ট্রগুলি যদি কম তেল উৎপাদন করে তাতে কেন্দ্র কি করতে পারে।আবার ডলারের চাহিদাও বেড়েছে।এহেন পরিস্থিতিতে সরকার চুপ করে বসে নেই। তেলের উপর কেন্দ্রীয় শুল্কের হার কমানোর ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা করছে সরকার। তবে আশা করা যায় এই পরিস্থিতি সাময়িক।