সাত পাকে বাঁধা পরতে চলেছেন ভারতের দুই তীরন্দাজ।

 

সৌমিত্র চক্রবর্তী, কলকাতা: বিশ্বের প্রাক্তন এক নম্বর মহিলা তীরন্দাজ দীপিকা কুমারী। তাঁরই হৃদয়ে বিদ্ধ হল প্রণয়-বাণে। আর তীরটি যিনি ছুড়লেন তিনিও ভারতের একজন নামকরা তীরন্দাজ, কলকাতার ছেলে অতনু দাস। সোমবার রাঁচিতে তাদের দুজনের মধ্যে আংটি বদলের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।
প্রথা মেনে ২৪ বছরের দীপিকা ২৬-এর অতনুকে নিয়ে তাঁর বাড়িতে বিশেষ পুজায় অংশ নেন। তারপর হয় আংটি বদল। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা ও অনেকে। এনগেজমেন্টের অনুষ্ঠানে দীপিকাকে দেখা গেল ঘিয়ে-সবুজ লেহেঙ্গা-চোলিতে।
অনুষ্ঠান সেড়ে তারা সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ২০১৯ সালে তাঁরা দুজনেই একের পর এক টুর্নামেন্টে ব্যস্ত থাকবেন। তার উপর অলিম্পিকও রয়েছে। কাজেই আগামী বছরের নভেম্বরের আগে বিয়ের কোনও সম্ভাবনা নেই তাদের। বিয়ে হবে ২০১৯ এর শেষের দিকে।
কমনওয়েলথ গেমসে সোনাজয়ী দীপিকা একসময় বিশ্বের একনম্বর মহিলা তীরন্দাজ হলেও এখন তিনি ক্রমতালিকায় নেমে গিয়েছেন ৫ নম্বরে। সেই সময় ভেঙে পড়া দীপিকাকে অতনুর স্বান্তনা দেওয়ার একটি ছবি ভাইরাল হয়েছিল। তার পর থেকে তাদের কেমিস্ট্রি নিয়ে জল্পনা শুরু হয় সবার মধ্যে। দুই তীরন্দাজের মধ্যে মিলন, দুজনের ভাগ্য বদলে দেয় কিনা সেটাই দেখার।