মেলবোর্ন টেস্ট ১৩৭ রানে জিতে সিরিজ জয়ের দোরগোড়ায় কোহলি ব্রিগেড

 

কল্যাণ অধিকারী,

বছরের শেষ রবিবার সকালটা ক্রিকেটময়। চতুর্থ দিনের পোক্ত লড়াই পঞ্চম দিনের লাঞ্চের আগে সাফল্য এনে দিল। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে দূরন্ত জয় টিম কোহালির।

ক্রিকেট নিয়ে কিছু লিখতে গেলে ডন বার্ডম্যান, ভিভিয়ানস রিচার্ড সহ একাধিক নাম চলে আসে। বেশ কয়েক দশক আগের কৃতিত্ব কেড়ে নেয় বর্তমান সময়ের দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই। কঠিন পরস্থিতির সম্মুখীন না হয়ে উল্টে বিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার মতো টিমের বুকে চেপে বসে টেস্ট ম্যাচ জেতা কম কৃতিত্বের।

দেশ স্বাধীন হবার পরে বহুবার অস্ট্রেলিয়া সফর করেছে টিম ভারত। সাফল্য এসেছে অবশ্যই। তবে এমন তারুণ্যের জোশ দেখা দিয়েছে কি! মাংকি ম্যানদের কটুক্তি, উইকেটের পিছন থেকে ক্যাপ্টেন পেনের বিদ্রুপ, স্টেডিয়াম থেকে বর্ণবৈষম্যের মতো বিষয় নিয়ে খোঁচা, কোহলির প্রতি অশালীন আক্রমণ। এতকিছু পরে ১৩৭ রানে জিতে ২-১ সিরিজ এগিয়ে যাওয়া অবশ্যই কোহলি ব্রিগেডের কৃতিত্ব।

সিডনিতে নামবার আগে ভারতীয় শিবির অনেকটা ফুরফুরে। অস্ট্রেলিয়া এবার কি ধরনের পিচ তৈরি করবে সেটাই দেখার। সবুজ উইকেট করবার সম্ভাবনা উজ্জ্বল। সেক্ষেত্রে বুমরাহ ফের আগুন জ্বালানো বোলিং করবে। তৃতীয় টেস্টে জসপ্রীত বুমরাহ ঝুলিতে ৯উইকেট মিলিয়ে এই সিরিজে ২০ উইকেট দখলে। বুমরাহ কথায় যা সেরার সেরা। দু বছর একদিনের ক্রিকেট খেলছেন। পেয়েছেন সাফল্য। কিন্তু ট্রেস্টে এমন সাফল্য অনেকটাই তৃপ্তিকর।

সিরিজের এই পর্যায়ে ভারতের তুলনায় অস্ট্রেলিয়ার চিন্তা অবশ্যই বেশি। ঘরের মাঠে বিপক্ষ ভারতের কাছে হার দেশের মিডিয়া ছিঁড়ে খাবে। সিরিজ শুরুর প্রথম থেকে কোহলিকে নিয়ে সমানে বিদ্রুপ করে চলেছে দর্শকদের একাংশ। মেলবোর্নে মাঠে ও মাঠের বাইরে অনেক কাণ্ড ঘটেছে। সবকিছুর প্রত্যুত্তর দিয়েছে ভারত ম্যাচ জিতে। এবার লক্ষ্য সিরিজ জেতা। সেটা সম্ভব হলে ভারতের সর্বকালের সেরা বিদেশ জেতা সিরিজ লেখা থাকবে স্বর্ণালী অক্ষরে।