ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড।

 

সৌমিত্র চক্রবর্তী: ফের বিশ্বজয়ের স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল ভারতীয় প্রমীলা বাহিনীর। বাঁধা সেই ইংল্যান্ড। গত বছরও ফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে বিশ্বকাপের স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের। এবারও ইংল্যান্ডের কাছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে হেরে গেল ভারত।

শুক্রবার টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দলের অধিনায়ক হরমনপ্রীত কউর। মন্ধনা ও তানিয়া ভাটিয়ার হাত ধরে শুরুটা ভালই হয়েছিল ভারতের। শুরুতে ভারতের স্কোর ছিল ৬ ওভারে ৪৩ রান।২৩ বলে ৩৪ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন স্মৃতি মন্ধনা। প্রথম উইকেট পতনের পর থেকেই যেন ভারতীয় দলে শুরু হয় উইকেটের খেলা। ধীরে ধীরে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তানিয়া ভাটিয়া,  রডরিগ্রেজ, হরমনপ্রীত কউর-এর মতো খেলোয়াড়। সেমিফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে উইকেটেই টিকে থাকতে পারলেন না হরমনপ্রীত ব্রিগেডের কোনও ক্রিকেটার। ফলে মাত্র ১১২ রানেই গুটিয়ে গেল ভারতীয় প্রমীলা শিবির।
ইংল্যান্ডের বোলিং বিভাগকে নেতৃত্ব দেন দলের ক্যাপ্টেন ক্লেয়ার নাইট। ২ ওভারে ৯ রান দিয়ে ভারতের ৩ উইকেট তুলে নেন তিনি।
১১২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথমে কিছুটা চাপের মুখে পড়ে ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় উইকেটে সিভার আর জোনসের ৯২ রানের পার্টনারশিপ ইংল্যান্ডকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেয়। ১৭ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে নেয় ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের হয়ে সিভার আর জোনস দুজনেই অর্ধশতরান করেন। জোনস ৪৭ বলে ৫৩ রানে আর সিভার ৩৮ বলে ৫২ রানে অপরাজিত থেকে যান।
ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মতে,গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে মিতালি রাজের মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড় দলে না থাকায় উইকেটে টিকে থেকে স্কোরবোর্ড সচল রাখতে ব্যর্থ হল ভারতীয় প্রমীলা ব্রিগেড।
মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমি- ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে হারিয়ে ফাইনালে আগেই জায়গা করে নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। শুক্রবার দ্বিতীয় সেমি ফাইনাল জিতে ইংল্যান্ড উঠে গেল ফাইনালে। রবিবার তারা মুখোমুখি হচ্ছে চার বারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে।