নিষিদ্ধ তালিকা থেকে মুক্তি পেল স্যারিডন সহ ২

 

কলকাতা, সৌমিত্র চক্রবর্তী: ৩২৮টি ওষুধ বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল কেন্দ্র সরকার। কিন্তু সোমবার সুপ্রিম কোর্টের রায়ে কেন্দ্রের দ্বারা নিষিদ্ধ ওষুধের তালিকা থেকে মুক্তি পেল স্যারিডন, পিরিটন এবং ডার্ট। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ফলে এই তিনটি ওষুধ বিনা বাধায় বিক্রি করা যাবে বাজারে। এই তিনটি ওষুধ ১৯৮৮ থেকে সালের আগে উত্পাদিত ‘ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন’ (এফডিসি) হওয়া সত্বেও কেন সরকার এগুলিকে নিষিদ্ধ ওষুধের তালিকায় রাখল, তা জানতে চেয়ে সরকারকে প্রশ্ন দেশের শীর্ষ আদালতের।
গত ১৩ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় সরকার মোট ৩২৮টি ‘ফিক্সড ডোজ কম্বিনেশন’-কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল । তখন থেকে ওই সমস্ত ওষুধের উৎপাদন, বন্টন ও বিক্রির ওপর পুরোপুরি ভাবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে সরকার।
উল্ল্যেখ, ২০১৬ সালে মার্চ মাস থেকে এইসব ওষুধ বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। কিন্তু ,বেশ কিছু ওষুধ উত্পাদনকারী সংস্থা সে বার বিভিন্ন হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়।সুপ্রিম কোর্ট ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মাসের দেওয়া নির্দেশ অনুযায়ী,ড্রাগ টেকনিক্যাল অ্যাডভাইসরি বোর্ড (ডিটিএবি) সামগ্রিকভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখে এবং কেন্দ্রকে দেওয়া রিপোর্টে এফডিসি গুলির উপর নিষেধাজ্ঞা জারির পরামর্শ দেয়। ডিটিএবির দাবি, ওই সমস্ত ওষুধ মানব দেহে ক্ষতি করছে।
এর পরেই নিষিদ্ধ হয় ওই ওষুধ গুলি। সোমবার দেশের শীর্ষ আদালতের রায় ঘোষণার পর ১৯৮৮ সাল থেকে উৎপাদিত স্যারিডন, পিরিটন এবং ডার্ট নামক ওষুধ গুলি কেন্দ্রীয় নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পায়। কেন্দ্র কোর্টে এই রায়ের উদ্দেশ্যে এই ব্যাপারে কি জবাবদিহি করে,সে দিকে তাকিয়ে সংশ্লিষ্ট মহল।