ডিপ্রেশন নিয়ে বই লিখছেন আলিয়ার দিদি শাহিন ভাট

রিয়া বাগঃ
ডিপ্রেশন বা বিষন্নতা বরাবরই আমাদের কাছে যেন একটা অত্যন্ত গোপন ব্যাপার। এ নিয়ে কথা বলতে কুণ্ঠাবোধ যেন চেপে ধরে ভুক্তভোগী থেকে পরিবারের লোকজনকে। এই ধারণাই ভুল প্রমাণ করে ছিলেন বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন। দাঙ্গাল খ্যাত জায়রা ওয়াসিমও সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি যে ডিপ্রেশনের শিকার হয়েছিলেন তা জানিয়েছিলেন।
সম্প্রতি আরো এক সেলিব্রিটি কিডের ডিপ্রেশনের কথা জানা যায়। তিনি হলেন মহেশ ভাট ও সোনি রাজদানের বড় মেয়ে শাহিন ভাট। তিনি নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় করা একটি পোস্টে সে কথা জানান। সেই পোস্টে তাঁর অভিজ্ঞতা, ডিপ্রেশনের কারণ এবং তিনি কীভাবে এ থেকে বেড়োলেন তা জানান।

এই অবধি তো দীপিকা এবং জায়রার সাথে তাঁর কোনো অমিল ছিল না। কিন্তু তিনি যে মহেশ কন্যা। একটু অন্যরকম না হলে কি মানায়। আর সেই অন্য রকম ঘটনাটি হল শাহিন নিজে তাঁর এই দুর্লভ অভিজ্ঞতা নিয়ে একটি বই লিখছেন।
শাহিন ভাটের মা অর্থাৎ সোনি রাজদান একটি সাক্ষাৎকারে সেই কথাই জানান। তিনি আরো বলেন শাহিন এই বইয়ের মাধ্যমে অন্যদের সাহায্য করতে চান। এই পরিস্থিতি গ্রহণ করা কোনো ভুল নয় এটাই বোঝাতে চান শাহিন। তিনি যোগ করেন শাহিন এক জন সাহসী, সৃজনশীল মেয়ে। ডিপ্রেশন নিয়ে এরকম মঞ্চে কথা বলা যথেষ্ট সাহসিকতার পরিচয়। শাহিন একজন খুব ভালো লেখিকা। শাহিন যখন তাঁদের তাঁর বই লেখার সিদ্ধান্ত জানান তখন তাঁরা খুশি হয়েছিলেন।
আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই শাহিনের বইটি হয়তো প্রকাশ পাবে। বাবা,মা এবং বোন আলিয়াকে সর্বদাই পাশে পাবে শাহিন এমনটাই মত সোনি রাজদানের।
এখন দেখার আগামী দিনে শাহিন ভাটের বই কতটা প্রভাব ফেলবে একজন ডিপ্রেশনে ডুবে থাকা মানুষকে।