কেন বারে বারে মুখ চেপে ধরো / কলমে – দেবপ্রসাদ বসু

কেন বারে বারে মুখ চেপে ধরো / কলমে – দেবপ্রসাদ বসু

কথায় কথায় মুখ চেপে ধরো কেন,
এভাবে কি যাবে হৃদয় সামলানো!
তুমি কি চাও না হৃদয় বিনিময়
মনুষ্যত্বের বৃহত্তর বিজয়।

ফুল ফুটলে ভ্রমর জোটে
অস্ফুটে বলে কথা,
কথা ফুটলে হৃদয় অকপটে
সম্পর্কে আনে মত্ততা।
ঢেউ, গুঞ্জন, কাকলির
কূল কিনারা খুঁজে পেয়েছে কি কেউ!

যতই কেড়ে নাও কলম, ছিঁড়ে দাও কাগজ
উল্টাও কালির দোয়াত
মা’য়ের ভাষা, হৃদয়ের ভাব
ছুটে যাবে রাজপথে;
যদি উপড়ে নাও জিহবা
ইশারায় চলবে সংঘাত, ঐক্য সহমতে।

পঞ্চপ্রদীপের আলো যে পথ চিনিয়েছিল
বুকের রক্ত, চেতনা পলতে পুড়িয়ে
তাই দিয়ে এগিয়ে এনেছি জয়ের মুকুল
প্রতিকূল প্রতিহত হিংসার শরীর চিরে;
পঞ্চআত্মীয়ের প্রাণের আহুতি আনল যে নবজীবন
মুক্ত মাটির নতুন ভোরে জাতীয় প্রাণের অন্তরে
সে কথা সবার ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েই বিজয়োৎসব
রক্তলোলুপ হিংস্রতার সন্ত্রাসী শব পেরিয়ে।

তাই, জেনে রাখো কথা একটাই
পৃথিবীর শত সম্পত্তির মাঝে
আমার ভাত ও ভাষায় হাত দিতে গেলে
পুড়বে ‘ও’ হাতের চামড়াটাই।

তুমি কি ভেবেছ তোমায়!
অনবরত রাত্রি বিলিয়ে বুকের আলো কেড়ে নেবে?
জীবনের শৈশবে কচি ডাল ভেঙে দেবে?
আমি তো নিঃস্ব নই, নিঃস্ব হব কেন!
আমার পূর্বপুরুষের রক্তে আগলানো
এ শস্যক্ষেত নদী অরণ্য পাখির কণ্ঠস্বর
সমুদ্র গর্জন, মা’য়ের আঁচল অনন্য।

এখানে মাটি বড় শক্ত,
লুটেরার লাঠি খালি হাতে ফেরে
বড়জোর মাখে রক্ত;
জটায়ুর তেজ, মাতৃভক্তি তোমায় ছাড়েনি
থমকে দিয়েছে গর্হিত গতি,
অনুসরণীয়, বরনীয় হ’যে আছে
মহতী মাটির প্রেম, আপামর সংহতি।

copyright@দেবপ্রসাদ বসু