কবিতা – কলকাতার ইতিকথা / কলমে – প্রসেনজীৎ চট্টোপাধ্যায়

কবিতা – কলকাতার ইতিকথা
কলমে – প্রসেনজীৎ চট্টোপাধ্যায়

কজনই বা দেখে জনসমুদ্রে আছড়ায় কত ঢেউ
যাবে দিনলিপি লিখে বুকের লহুতে নেই কি এমন কেউ” ?
কজনই বা বোঝে ব্যস্ত শহরে আছে কত শূন্যতা
তাই অনেকেই বলে তিলোত্তমা, সুন্দরী কলকাতা ।
কজনই বা দেখে প্রদীপের নীচে আঁধারের বিদ্রূপ
যে কাঁটা লুকিয়ে আছে ফোটা ফুলে বিদীর্ণ করে বুক ।
দেখি এ শহরে পথের দু’ধারে বিবর্ণ কত মুখ
মনিবের কাছে শ্রম বেচে তারা কিনতে পারেনা সুখ ।
দিন শুরু হলে দেখি ধীরে ধীরে পথিকের সমাগম
মুখে নেই কথা আছে ব্যস্ততা সাথে সময়ের দাম ।
কত লোক ছোটে আলেয়ার পথে সম্বল বিশ্বাস
যত ছোটে খায় হোঁচট ততই, ফেলে দীর্ঘশ্বাস ।
দেখি ফুটপাতে সংসার পাতে গৃহহীন যাযাবর
হয়তো বা তারও ছিল স্বদেশেই একচালা কুঁড়েঘর ।
অস্থির বেশে দলে দলে আসে কি তাদের পরিচয় ?
আমরণ তারা খোঁজে ফুটপাতে ক্ষণিকের আশ্রয় ।
কত লেনদেন, বেচাকেনা দেখি পার্থিব সঞ্চয়
স্বার্থ গোছায় হিসাবীরা, বেহিসাবি নিঃস্ব হয় ।
কেউ ঝুলে আছে ট্রেনে আর বাসে কেউ দণ্ডায়মান
বসে পাশাপাশি মুখে নেই হাসি নির্বাক, নিষ্প্রাণ ।
এ শহর ছোটে বিস্তৃত পথে প্রত্যহ, অবিরাম
এ শহর মনে রাখেনা গরীব শ্রমজীবীদের নাম ।
আছে যার টাকা সাথে চারচাকা, বিস্তর কারবার
তারাই শহুরে এ মহানগরে, আছে সন্মান তার ।
যার নোনা দেওয়ালের কোণে বসবাস, দশ ফুটে নিঃশ্বাস
জানে সে-ই শুধু কি যন্ত্রণা আমরণ কারাবাস ।
আছে পাঁচতারা, নামী রেস্তোরা, আহার আর বিনোদন
আছে তকমা লাগানো বাবুদের তরে বিলাসিতার আয়োজন ।
নেই জীবনের দাম, শ্রমের বিরাম, ঝরে রক্ত ও ঘাম
এ শহর চুরি করে নেয় শ্রম দেয় না সঠিক দাম ।
যার যত আছে তত সে লোলুপ, অতিশয় হীন মন
সে বড় কাঙাল সঞ্চয় যার শুধু পার্থিব ধন ।
রোজগার করে তাবেদার , রাখে মনিবের আবদার
ফুলে ফেপে ওঠে তারই কারবার কালো টাকা আছে যার ।
যারা সত্যাশ্রয়ী সৎ পথে হেঁটে করে কিঞ্চিৎ আয়
দেখি এ সমাজে তারা ঘানি টানে, সংসারে পিষে যায় ।
দুর্ভিক্ষের স্রোতে যারা যায় ভেসে অভাবের তাড়নায়
ডুবে যায় তার জীবন তরণী হতাশার মোহনায় ।
সন্ধ্যা ঘনালে সাজানো শহরে দেখি কত রোশনাই
বিজ্ঞাপনের রাজকীয় সাজ স্বপ্ন দেখায় ভাই ।
ওঠে মদের ফোয়ারা ব্যস্ত বেয়ারা পাঁচতারা হোটেলে
কত কালো টাকা সাদা হয় ছোট পর্দার আড়ালে ।
দেখি যে নিত্য কত বিচিত্র শহরের চিত্র
মুখোশের আড়ে অভিনয় করে শত্রু বা মিত্র ।
পথ ভুলে যায় পথিক কোথায়? লক্ষ্য যে বহুদূর
এ শহরে খালি দেখি চোরাবালি, মেঘে ঢাকা রোদ্দুর ।
কেন মনে হয় এ শহর আজও লাঞ্ছিত জননী
যেন লাশকাটা ঘরে পড়ে আছে লাখো ধর্ষিতা রমণী ।
জনতার ঢলে কলকোলাহলে ভরে ওঠে কলকাতা
কজনই বা বোঝে ব্যস্ত শহরে আছে কত শূন্যতা ।।

কবি – প্রসেনজীৎ চট্টোপাধ্যায়
copyright@Prasenjit Chatterjee